শপিফাই কি? শপিফাই দিয়ে যেভাবে ব্যবসা করবেন !

শপিফাই

শপিফাই হলো একটি ইকমার্স প্ল্যাটফর্ম বা ওয়েবসাইট বিল্ডার। এটি একটি কানাডিয়ান মাল্টিন্যাশনাল ই কমার্স কোম্পানি। ওটাওয়া, অন্টারিওতে তাদের হেডকোয়ার্টার অবস্থিত। ২০০৬ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

Shopify দিয়ে অনলাইন স্টোর তৈরি করে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন। আপনি আপনার প্রোডাক্ট বিক্রি থেকে শুরু করে,ড্রপশিপিং, এফিলিয়েট ও ক্লায়েন্টের প্রোডাক্ট খুব সহজে প্রোডাক্ট প্রমোট ও বিক্রি করতে পারবেন পারেন। এর মাধ্যমে বিক্রয় হওয়া পণ্যের মূল্য সহজে অনলাইনে গ্রহণ করতে পারবেন।

শপিফাই কিভাবে কাজ করে?

শপিফাই এর বড় সুবিধা হলো এর সেটআপ। কোনো কোডিং জ্ঞান ছাড়াই আপনি শপিফাই এর মাধ্যমে একটি অনলাইন স্টোর বা ইকমার্স সাইট বানাতে পারবেন। আপনার সাইটকে সাজানোর জন্য বিভিন্ন রকম টুলস ও থিম রয়েছে এতে।

একটি সাইট বানানোর পর এর এডমিন প্যানেল ম্যানেজ করাটাও বেশ জটিল ও ঝামেলার কাজ। তাই অনেক সময় এডমিন প্যানেল ম্যানেজ করার জন্য আলাদাভাবে একজন এমপ্লয়ি রাখতে হয়। কিন্তু শপিফাই এ সে ঝামেলা নেই।

সাইটের বিভিন্ন টেকনিক্যাল বিষয় যেমন: সিকিউরিটি, আপডেট ও ব্যাকআপ নিয়ে আপনার কোনো চিন্তা করতে হবে না। তাই শপিফাই ব্যবহার করে অনলাইন শপ দেওয়া খুবই সহজ।

যাদের ওয়ার্ডপ্রেস সাইট বা ব্লগ ম্যানেজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাদের জন্য শপিফাই এ ইকমার্স বা অনলাইন স্টোর বানানো কয়েক মিনিটের ব্যাপার। ইউটিউবে সার্চ দিলে হাজার হাজার টিউটোরিয়াল পাবেন এই ব্যাপারে।

Shopify এ স্টোর ক্রিয়েট করার জন্য আপনাকে যে কোন একটা প্ল্যান নিতে হবে। তবে আপনি সাইন আপ করার পর ১৪ দিনের জন্য ফ্রি ট্রায়াল পাবেন। সেটির মাধ্যমে আপনি অনলাইন স্টোর বানাতে পারবেন এবং তা শপিফাই এপসেও পরিচালনা করতে পারবেন। ট্রায়াল সময় শেষ হওয়ার পর তাদের যে কোন একটি প্ল্যান বেছে নিয়ে আপনার ইকমার্স বা অনলাইন শপকে রানিং করতে পারবেন।

চলুন Shopify এর প্ল্যানগুলো দেখে আসি

Shopify Lite – $9/monthly

Shopify Basic – $29/monthly

Shopify Regular -$79/monthly

Shopify Advanced -$299/monthly

Shopify Plus – $2000/monthly

সম্পূর্ণরূপে হোস্ট করা Shopify Plus প্ল্যানটি প্রতিমাসে $2,000 থেকে শুরু হয়, এবং Shopify Lite এ মাসে $ 9 ডলার।

এ দুটি প্ল্যান আলাদা করে বলার কারন হলো, এই প্ল্যানগুলো তাদের সাইটে আলাদাভাবে উল্লেখ করা আছে। Shopify Plus হলো বড় বড় কোম্পানি যারা তাদের জন্য, এতে Shopify এর সকল সুবিধাগুলো পাওয়া যাবে।

Shopify Lite সম্পর্কে আপনাকে জানানো দরকার যে, এটি আপনাকে একটি বা পুরোপুরি কার্যকর অনলাইন স্টোর সরবরাহ করে না। মানে এই প্ল্যান দিয়ে আপনি ডোমেইন ও হোস্টিং সহ অনলাইন স্টোর তৈরি করতে পারবেন না। আপনি শুধু Buy Button টি পাবেন, যেটির মাধ্যমে এমবেড করে আপনার অন্য কোন সাইটে প্রোডাক্টের সাথে যুক্ত করে বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি যদি শুধু ফেসবুকে বিক্রি করতে আগ্রহী হন, তাহলে এই প্ল্যানটি আপনার জন্য একটি ভালো অপশন হতে পারে। কয়েকটি ক্লিক এর মাধ্যমে আপনি আপনার সকল প্রোডাক্ট ফেসবুক শপ ফিচারযুক্ত পেইজে পাবলিশ করতে পারবেন।

এর আরেকটি অসুবিধা হলো ডিজিটাল প্রোডাক্ট বিক্রির ক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করা যায় না।

Shopify Lite প্ল্যানটি বাদে শপিফাই এর প্রতিটি প্ল্যানে রয়েছে একটি ডোমেইন,সিকিউরিটি সকেট লেয়ার (SSL) এবং ওয়েব হোস্টিং।

শপিফাই দিয়ে ড্রপশিপিং করে ইনকাম করুন

Shopify তে যে কোন ধরনের প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করতে পারবেন। সেটি ফিজিক্যাল কিংবা ডিজিটাল প্রোডাক্ট ও হতে পারে। ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট যেমন – কাপড়, বই, ফার্নিচার বা ইলেক্টনিক্স জিনিস।

আর ডিজিটাল প্রোডাক্ট মানে হলো ই বুক,ওয়েবসাইট থিম,লোগো,ভিডিও ইতাদি। মোট কথা, যত ধরনের ইকমার্স প্রোডাক্ট প্রচলিত আছে তার সবই Shopify এ প্রমোট ও বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি যা বিক্রি করবেন তা আপনার স্টকে রাখার দরকার নেই। আপনার নিজস্ব তৈরি করা প্রোডাক্ট বা সার্ভিস না থাকলে ও আপনি শপিফাই দিয়ে অনলাইন শপ এর মাধ্যমে ব্যবসা করতে পারবেন। আর সেটি হলো ড্রপশিপিং করে। এ প্ল্যাটফর্মটি ড্রপশিপিং ব্যবসায় জন্য বেশি জনপ্রিয়।

ড্রপশিপিংয়ের মাধ্যমে, আপনি যেসব অর্ডার আপনার সাইটে পাবেন, সেগুলো সরবরাহকারীকে সেন্ড করবেন এবং তারা আপনার ক্লায়েন্টকে পণ্য সরবরাহ করবে। আপনার স্টোরটি মূলত তৃতীয় পক্ষ হিসেবে কাজ করে।

লোকজন ড্রপশিপিং অনেক দিন ধরে করে আসছে। Shopify আসার পর এই ব্যাপারটা অনেকাংশে সহজ হয়ে গিয়েছে।

যারা ড্রপশিপিং ব্যবসায় সাথে জড়িত বা জড়িত হতে চাচ্ছেন তাদের অধিকাংশেরই পছন্দের প্ল্যাটফর্ম হলো Shopify। বাংলাদেশ থেকে অনেকেই এখন শপিফাই দিয়ে ড্রপশিপিং করে ইনকাম করছে।

সহজে পরিচালনাযোগ্য ও ঝামেলামুক্ত ইকমার্স সাইটের জন্য শপিফাই হলো একটি অন্যতম মাধ্যম। সাইটের জন্য যদি আপনার বাজেট কম হয়ে থাকে তবে শপিফাই হয়তো আপনার জন্য উপযুক্ত না ও হতে পারে।

তবে একটি জিনিসের সুবিধা যেমন থাকে তার পাশাপশি কিছু অসুবিধাও থাকে। তবে শপিফাই বা অন্যভাবে ড্রপশিপিং শুরু করার আগে এ ব্যাপারে সবার ভালোভাবে ধারণা নেয়া দরকার।

আমরা আমাদের পরবর্তী লেখাগুলোতে শপিফাই এর অন্যান্য বিষয়গুলো তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আমাদের এই লেখাটি কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 18 =